DIGITAL

September 30, 2022

APTCE 18538973148

বরাক সেতু নির্মাণে পূর্ব বড় খলা এলাকার মানুষের সাথে প্রতারণা করা হয়েছে , অভিযোগ SMKS এর

 নিজস্ব সংবাদদাতা বড় খলা 4 ঠা ফেব্রুয়ারি– বড় খলা বিধানসভা সমষ্টি র উত্তর প্রদেশ বলে খ্যাত পূর্ব বড় খলা এলাকার তিনটি পঞ্চায়েত এলাকার বাসিন্দারা সেই যেদিন থেকে বিজেপির আত্মপ্রকাশ হয়েছিল সে দিন থেকেই আজকের এই মূহুর্ত পর্যন্ত এই জেলা পরিষদের অধীনে থাকা তিনটি পঞ্চায়েত এলাকা দুধ পাতিল , ছোট দুধ পাতিল, ও হাতি ছড়ার ভোটার গন বিজেপির অনুকূলে ভোট দিয়ে আসছেন ।

          এখানে উল্লেখ্য যে এই এলাকার হাজার হাজার মানুষ শহর শিলচরে যোগাযোগ করতে বিরাট অসুবিধার সম্মুখীন হন , সেটা থেকে পরিত্রাণ পেতে তৎকালীন সাংসদ কবী ন্দ্র পুর কায় স্থ মহাশয়ের শরণাপন্ন হলে তিনি তাদের ভোটের মূল্যায়ন করে এখানে বরাক সেতুর প্রয়োজন আছে বলে তদবির করে 1999 ইংরেজি তে মোট 22 কোটি টাকা বরাদ্দ করেন , খুশিতে ভরে গেল সেই সব মানুষদের মন , কিন্তু বিধি বাম, সেই  সেতু মধুরা ঘাটে না হয়ে লক্ষীপুর ফুলের তলে চলে যায় । আবার ও মাথাচাড়া দিয়ে উঠলো বরাক সেতুর দাবি ,2013 ইংরেজি তে আবার ও একটি দাবী কমিটি গঠন করে সরকারের কাছে আবেদন জানানো হয় , তৎকালীন সরকার এই দাবির প্রতি সম্মান জানিয়ে 2017 ইংরেজী তে একটি টেকনিক্যাল কমিটি গঠন করে মধুরাঘাটে বরাক সেতু নির্মাণের জন্য সরজমিন পরিদর্শন করতে পাঠান , কমিটি মধুরা ঘাট ও ইট খলা ঘাটে র মধ্যে সেতু নির্মাণের প্রস্তাব  করে বিস্তারিত বিবরণ সরকারের কাছে জমা দেন ।

                   কিন্তু ভাগ্যের নির্মম পরিহাস এই তিনটি পঞ্চায়েত এলাকার বাসিন্দারা দের  ভাগ্যে যে  বরাক সেতুর উপর দিয়ে শিলচর  শহরের সাথে যোগাযোগ করার যোগ যে নেই তা পরিষ্কার হয়ে গেলো  একমাত্র তাদের ভোটে নির্বাচিত প্রতিনিধি র জন্য । বিগত দিনে এই তিন পঞ্চায়েত এলাকার  ভোটার দুই হাত ভরে বিজেপি দলের প্রার্থী কে ভোট দিয়ে বিধায়ক বানালেন, তিনি যে তাদের সাথে এভাবে প্রতারনা করবেন কে জানত ? তিনি যে এই এলাকার মানুষের দীর্ঘদিনের গন দাবি কে নস্যাৎ করে  সেই সেতু অন্ন পূর্ণা ঘাটে সরিয়ে নিবেন কে জানত , এভাবেই সর্বাঙ্গীণ মানব কল্যান সংঘের সদস্যরা তাদের খেদ প্রকাশ করে বলেন যে এটা বিধায়ক মহাশয়ের প্রথম প্রতারনা ।তারা বর্তমানে এমন ভাবে চটেছেন যে প্রধান মন্ত্রীর কাছে স্মারকলিপি প্রদান করে বলেছেন যে আমরা বিজেপি কে ভোট কি প্রতারনা করার জন্য দিয়েছিলাম ? এমনতর শব্দ বানে পরিপূর্ণ স্মারকলিপি  প্রধান মন্ত্রী থেকে শুরু করে প্রদেশ বিজেপির নেতা সহ কাছাড় জেলার বিজেপির বিধায়ক , জেলা কমিটির শীর্ষ নেতাদের কাছে পাঠিয়ে এই সামাজিক সংগঠন এলাকার বাসিন্দা দের মনের  কথা তুলে ধরেন ।তারা আরও বলেন যে আমরা এখনো বিজেপির আদর্শে অনুপ্রাণিত হয়ে আছি কিন্তু আমাদের সাথে দলের বিধায়ক যে প্রতারনা করেছেন তা নিয়ে এই তিন পঞ্চায়েত এলাকার ভোটার গন সময়ে সিদ্ধান্ত নিবেন বলে তাদের  মত ব্যাক্ত করেছেন । সর্বাঙ্গীণ মানব কল্যান সংঘের সাধারণ সম্পাদক আইনজীবী তন্ময় পুর কায় স্থ এক প্রেস বার্তায় এই খবর জানিয়েছেন ।