DIGITAL

September 30, 2022

APTCE 18538973148

মুসলিম NRC , এটা কিসের ইঙ্গিত বহন করতে চলেছে?

বিশেষ প্রতিবেদন  15 ই এপ্রিল—— রঙা লী বিহু ও বাংলা নববর্ষের প্রথম দিনের এক বিশেষ উপহার হিসেবে আমরা জানতে পারলাম সতেরো জনগোষ্ঠী সমন্বয় পরিষদ বেসরকারি ভাবে মুসলিম NRC  তৈরী করতে  চলেছে ।এই প্রতিবেদক মনে করছেন এভাবে যদি জাতিগোষ্ঠী হিসেবে এন আর সি তৈরি করা হয় তাহলে  আসামে আবার নূতন করে সৃষ্টি হবে সিয়া -সুন্নী গোষ্ঠী ।

এখানে উল্লেখ্য যে মাস আটেক আগে আসামের নামকরা আইনজীবী মাননীয়  এন , জামান সাহেব প্রাগ নিউজ চ্যানেলের এক অনুষ্ঠানে বলেছিলেন আসামের ভূমি পুত্র মুসলমান গন হলেন মরিয়া, গড়িযা , জলীহা  সম্প্রদায়ের বাসিন্দারা । কিন্তু অতীব দুঃখের বিষয় ভূমি পুত্র হিসেবে এই সমাজের জনগণ আর্থ সামাজিক ও রাজনৈতিক ভাবে পিছিয়ে পড়া হিসেবে বসবাস করে আসছেন । তাদের এত জনসংখ্যা থাকা সত্ত্বেও নিজের সমাজের কোন বিধায়ক নেই বললেই চলে । তিনি বলেছেন আসামের মোট মুসলমান জনসংখ্যা এক কোটি তিরিশ লাখ , তার মধ্যে প্রায় চল্লিশ লক্ষ মরিয়া , গড়িযা, জলীহা সম্প্রদায়ের এবং বাকি নব্বই লাখ মুসলমান বাংলা ভাষী , যারা নাকি বাংলাদেশের মূলের মানুষ , আজ তারা উনিশ থেকে বিশ জন বিধায়ক নির্বাচিত করতে পারে সেখানে  আমরা ভূমি পুত্র সন্তান গন কেন পিছিয়ে । সেদিন থেকে যেটুকু ভাবা গিয়েছিল গতকাল তা পরিষ্কার করে বুঝিয়ে দিলেন বিজেপির সংখ্যালঘু নেতা মমি নূল  আওয়া ল সাহেব । একেবারেই এই মুসলিম এন আর সি তে কারা আবেদন করতে পারবেন আর কারা  করতে পারবেন না সেটা বুঝিয়ে দিলেন ।

এমনিতেই বহুল চর্চিত এন আর সি আসামে তিন প্রকার নাগরিকের সৃষ্টি করতে চলেছে , আর এখন যদি ধর্মীয় সংখ্যালঘু দের মধ্যে দুভাগ সৃষ্টি করা হয় তাহলে ভয়ানক পরিস্থিতির সৃষ্টি যে হবে তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না । যদি ও আপাত দৃষ্টিতে বেসরকারি  মুসলিম এন আর সি তৈরি করার প্রস্তাব থাকলে পরে  যদি সরকার সতেরো জনগোষ্ঠী সমন্বয় পরিষদের দাবি মেনে নেয় তাহলে  বর্তমান এন আর সি তৈরির সময় যারা হিন্দু বাংলাদেশী বলে চিৎকার করেছিলেন আখেরে তাদেরকে লেজে গোবরে যে হতে হবে সেটা নিয়ে মন্তব্য করেছেন বিশিষ্ট ব্যক্তি বর্গ গন । সচেতন মহল থেকে বলা হচ্ছে বাঙালির অস্তিত্ব বজায় রাখতে হলে হিন্দু মুসলিম কার্ড নিয়ে খেলা বন্ধ করে বাংলা ভাষী হিসেবে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে , নতুবা বিরাট খেসারত দিতে হবে ।