DIGITAL

January 26, 2023

APTCE 18538973148

বহু প্রতীক্ষিত ডিটেনশন ক্যাম্পের উদ্বোধন হবে আগামী মাসে –

নিজস্ব সংবাদ দাতা গুয়াহাটি 25 শে আগস্ট— এশিয়ার সর্ব বৃহৎ ডিটেনশন ক্যাম্প গোয়াল পাড়া বিশ্বের মানচিত্রে সভ্যতার যুগে এক অমানবিক নিদর্শন হিসেবে চিহ্নিত হয়ে যাবে আগামী সেপ্টেম্বর মাসে । সূত্রের দাবি এধরনের মানুষ রাখার শিবির ভারতের আসাম রাজ্যে নির্মিত হয়েছে।

এখন প্রশ্ন হচ্ছে এখানে কাদের রাখা হবে ?  সূত্রের দাবি যারা বিদেশী হিসেবে চিহ্নিত হবে, অর্থাৎ অবৈধ অনুপ্রবেশ কারী দের তো, এন,  আর সি মতে 1-1-1966 এর পূর্বের এক শ্রেণীর আর  , 1-1-1966  থেকে 24-3-1971  এর আরেক  শ্রেণীর নাগরিক চিহ্নিত করা হবে আর 24-3-1971 এর পরে আরেক শ্রেণির নাগরিক চিহ্নিত করা হবে । এদিকে আলোচনা শুরু হয়েছে , ধর্মীয় সংখ্যালঘু গন ভাবছেন ভাষি ক সংখ্যালঘু রা বিপজ্জনক পরিস্থিতির সম্মুখীন হবেন , অন্য দিকে ভাষি ক সংখ্যালঘু গন ভাবছেন “কা” এর মাধ্যমে পার পেয়ে যাবেন ।কিন্তু বাস্তবে তা না , আইন মোতাবেক আসামে দুই সংখ্যালঘু গন যে বিপদে পড়বেন তা নিশ্চিত ।

এদিকে বাংলা ভাষি এলাকায় কান পাতলে শুনা যায় , আমাদের নাম এন,  আর, সি তে এসে গেছে, কোন চিন্তা নেই, কিন্তু অতীব দুঃখের বিষয় কেউই বুঝতে চাইছেন না আসল রহস্য, Accept লেখা দেখে সবাই ভাবছেন কাজ হয়ে গেছে , কিন্তু সেটা যে আমাদের আবেদন গ্রহণ করা হয়েছে তা মানতে নারাজ সবাই । Accept  লেখা কাগজের নীচে যে নোট দেওয়া হয়েছে তা পড়ার সুযোগ হয়নি বলে এমনটাই বলছেন । এই প্রতিবেদকের কাছে অনেকেই বলেছেন আমরা 24-3-1971 এর পূর্বের নথি দিয়ে আবেদন করেছি, আমাদের নাম ও এসে গেছে চিন্তা মুক্ত আমরা  , কিন্তু যারা বন্দি শিবিরে যাবে তাদের এক অবস্থা হবে আর   যারা 1-1-1966-24-3-1971   মধ্যে যারা  এসেছেন তারা কি একবারও ভেবেছেন যে তাদেরকে ও আদালতে গিয়ে বিদেশী হিসেবে চিহ্নিত হতে হবে?   এই প্রতিবেদকের কাছে যেটা অনুভব হয়েছে সেটা হলো  হিন্দু বাঙালি গন ভাবছেন মুসলমান বাঙালি গন বিপদে পড়বেন , আর মুসলমান বাঙালি গন ভাবছেন হিন্দু বাঙালি গন বিপজ্জনক পরিস্থিতির সম্মুখীন হবেন ।আসলে ধর্মের চশমা পরে আছেন উভয় বাঙালী , এখানে আসাম চুক্তির ভিত্তিতে কারা ভারতীয় তা চিহ্নিত করা হবে , ভারতের সুপ্রিম কোর্ট ও এক রায়ে বলেছে এই কথা ।

সূত্রের মতে মোট একহাজার বিদেশী আদালত খোলা হবে , দুশো আদালত ইতিমধ্যেই চালু করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে আগামী অক্টোবর মাসে আরও আট শত আদালত খোলা হবে , যাতে করে শীঘ্রই আসামের বিদেশী সমস্যার সমাধান হয় ।