DIGITAL

January 26, 2023

APTCE 18538973148

লক্ষীপুর জগাই মথুরা উচ্চ মাধ্যমিক স্কুলের শুভারম্ভ অনুষ্ঠান

লক্ষীপুর থেকে অসীম রায়ের প্রতিবেদন 9 ই অক্টোবর— দীর্ঘ প্রতীক্ষিত জগাই মথুরা হাই স্কুল কে হায়ার সেকেন্ডারি স্কুলে উন্নীত করায় সমগ্র লক্ষীপুর এলাকার মানুষ যারপর নাই উল্লসিত হয়েছেন ।এখানে উল্লেখ করা আবশ্যক এই হাই স্কুল কে হায়ার  সেকেন্ডারি স্কুলে উন্নীত করতে পূর্বতন বিধায়ক গন সচেষ্ট ছিলেন না বলে অভিমত ব্যক্ত করেছেন স্থানীয় সচেতন মহল ।এবারের কর্ম তৎপর বিধায়ক মাননীয় কৌশিক রাই নির্বাচিত হওয়ার পর প্রথমে এই সমষ্টি র শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলোর পরিকাঠামো উন্নয়নের জন্য তৎপর হন যার ফলে সমগ্র রাজ্যের সাথে এই  পিছিয়ে পড়া অঞ্চলের একমাত্র হাই স্কুল কে  হায়ার সেকেন্ডারি স্কুলে উন্নীত করতে  তদবির করেন যার ফলে গতকাল এই স্কুল  হাযার সেকেন্ডারি স্কুল বলে  পরিচিত হয় ।

গতকাল 8 ই অক্টোবর লক্ষীপুর মহকুমার জগাই মথুরা হাই স্কুলের হায়ার সেকেন্ডারি প্রথম বর্ষের ক্লাসের শুভ সূচনা করা হয় ।প্রদীপ প্রজ্বলন করে এই মহান অনুষ্ঠানের শুভ সূচনা করেন লক্ষীপুর বিধানসভা কেন্দ্রের কর্ম বীর বিধায়ক মাননীয় কৌশিক রাই মহাশয় ।এই উপলক্ষে আয়োজিত সভায় সভাপতিত্ব করেন এই স্কুলের পরিচালন সমিতির প্রাক্তন সভাপতি মনি হার সিংহ মহাশয় , এই সভায়  প্রধান  অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিধায়ক কৌশিক রাই, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অবসর প্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক দূর্গা কান্ত পাণ্ডে, সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আরেক অবসর প্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক কে, বীরেন্দ্র সিংহ , তাছাড়া উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট ব্যক্তিদের মধ্যে বিশ্ব জিত দেব রায়, মনি মোহন সিংহ, গুঞ্জন কর, বিদ্যা ব তী সিংহ , মৃণাল কান্তি দাস, পঞ্চায়েত সভাপতি হেলেন বাবু সিংহ ।উদ্দ্বোধনী সঙ্গীত পরিবেশন করেন এই স্কুলের করণিক বিশ্ব জিত সিংহ , স্বাগত ভাষণ দেন এই স্কুলের অধ্যক্ষ শিল্প জিত পাল, তিনি বলেন আজকের এই অনুষ্ঠানের সম্পূর্ণ কৃতিত্ব আমাদের কর্ম বীর বিধায়ক কৌশিক রাই মহাশয়ের , তিনি র ঐকান্তিক প্রচেষ্টার ফলে আমাদের  দীর্ঘদিনের দাবি বাস্তবায়িত হলো তাই এলাকার ছাত্র ছাত্রী ও তাদের পরিবারের তথা এই এলাকার মানুষের পক্ষ থেকে সাধুবাদ জানাচ্ছি । প্রধান অতিথি মাননীয় কৌশিক রাই আবেগের সুরে বলেন যে আমি আমার প্রতিশ্রুতি পালন করছি , আমি এই স্কুলের পরিকাঠামো উন্নয়নের জন্য পঞ্চাশ লক্ষ টাকা আর্থিক সাহায্য প্রদান করব , তিনি ঘোষণা করেন প্রথম বর্ষ চালাতে স্থানীয় ভাবে  যতদিন স্নাতকত্তর শিক্ষক না পাওয়া যাবে ততদিন তাদের পারিশ্রমিক বিধায়ক তহবিলের অর্থ থেকে পরিশোধ করা হবে ।বিধায়ক মহাশয়ের এহেন পদক্ষেপ কে উপস্থিত বিশিষ্ট ব্যক্তি গন খুশি ব্যক্ত করেন ।এখানে উল্লেখ করা আবশ্যক কিছু দিন আগে বিধায়ক কৌশিক রাই   প্রজ্ঞা যোজনা  তৈরি করে সমগ্র রাজ্যে আলোড়ন সৃষ্টি করেন । এই ব্যতিক্রমী যোজনা একমাত্র  তিনি সমগ্র রাজ্যে সূচনা করেন ।