DIGITAL

January 26, 2023

APTCE 18538973148

প্রসঙ্গ, অরুণোদয় প্রকল্পের তদন্ত — সর্বত্র একই কথা এটা তদন্ত না বুঝাপড়া– অভিযোগ উঠেছে

বিশেষ প্রতিবেদন ৩রা সেপ্টেম্বর শিলচর —- যত গর্জে তত বর্ষে না,এই প্রবাদ বাক্যের মধ্যে পড়েছে বর্তমান সরকারের নিত্য নতুন তদন্ত ঘোষনা। বর্তমান সরকারের স্বচ্ছ প্রশাসনের স্লোগান কতটুকু আন্তরিক তা নিয়ে রীতিমতো চুলচেরা বিশ্লেষণ শুরু হয়েছে সচেতন মহলে।

মাননীয় মূখ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্ব শর্মা মহাশয়ের দূর্নীতির বিরুদ্ধে গর্জে উঠা দেখে সচেতন মহল ভেবেছিলেন এবার ব্যতিক্রমী দৃশ্য পরিলক্ষিত হবে, দুই একটি ধরপাকড় শুরু হলে ও বিভিন্ন বিভাগের আমলারা দিব্যি কায়দায় তাদের কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন বলে বিস্তর অভিযোগ উঠেছে। দূর্ণীতির বিরুদ্ধে সরকার যত কিছু পদক্ষেপ গ্রহণ করুক না কেনো যদি আমলা গন আন্তরিক না হন ততক্ষণ দূর্ণীতি চলবে।যেমনটা চলছে গ্রাম উন্নয়ন বিভাগ ও খাদ্য ও সরবরাহ বিভাগের মধ্যে।

বিগত দিনে অরুণোদয় প্রকল্পের হিতাধিকারি চয়নে সম্পূর্ণ নিয়ম নীতি কে বিসর্জন দিয়ে যে তালিকা তৈরি করা হয়েছিল তা সরকারের দৃষ্টি গোচর হয়।সেটা কে স্বচ্ছ করে তুলতে পূর্বের তালিকা যাচাই করতে তদন্ত কমিটি গঠন করার  সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।এই সিদ্ধান্ত চাউর হতেই সমগ্র রাজ্যের বঞ্চিত হিতাধিকারি গন উৎফুল্লিত হয়েছিলেন এই ভেবে যে বাড়ী বাড়ী গিয়ে তদন্ত হলে আসল তথ্য প্রকাশ পাবে। সুত্রে জানা গেছে বর্তমানে বড়খলা বিধানসভা ও কাঠিগড়া বিধানসভা এলাকার বিভিন্ন পঞ্চায়েত গুলিতে তদন্ত শুরু হয়েছে, অবশ্য কোন সংগঠন বা সংস্থা এই তদন্ত চালাচ্ছে তা অস্পষ্ট রয়েছে। এখানে উল্লেখ্য যে বিগত ২০১১ ইং সালে কে বা কারা আর্থ সামাজিক ও জাতিগত লোকগননা তালিকা তৈরি করেছিল তা যেমন অস্পষ্ট ছিল ঠিক এমনি বর্তমান তদন্ত প্রক্রিয়া চলছে বলে জানিয়েছেন স্থানীয় বাসিন্দারা। সুত্রে জানা গেছে প্রতিটি গাঁও পঞ্চায়েতের নির্দিষ্ট কিছু বাড়ীতে বসে অরুণোদয় প্রকল্পের হিতাধিকারি দের কে পুনরায় সীল মোহর এঁটে উপযুক্ত বলে তালিকা তৈরি করছেন তদন্তে আসা কর্মী গন।

স্থানীয় বাসিন্দারা জানান দলীয় স্বার্থে এই লোক দেখানো তদন্ত কমিটি গঠন করা হচ্ছে, এখানে পূর্বের তালিকা যে বহাল থাকবে তা তদন্তের নমুনা দেখে আর বলার অপেক্ষা রাখে না। এদিকে বর্তমান সরকারের আমলে বিরোধী দলের অসহায় অবস্থা , এখন পর্যন্ত এই তদন্তের বিষয়ে বিরোধী দলের নেতাকর্মী ও সমর্থকরা  টু শব্দ কেনো যে করছেন না তা নিয়ে সাধারণ মানুষ বিস্ময় প্রকাশ করেছেন। এব্যাপারে কাছাড় জেলা প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করছেন সংশ্লিষ্টরা। এদিকে অনেক কে মন্তব্য করতে শুনা গেছে এসব কাট ছাট হলে ভোট যে কমে যাবে তা মাথায় রেখে একটা নাটক যেন মঞ্চস্থ হচ্ছে।