DIGITAL

December 5, 2022

APTCE 18538973148

স্থানীয় সুপারী উৎপাদক গন বিপাকে,ন্যায্য মূল্য ও পাচ্ছেন না, মুখ্যমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করছেন গরীব মানুষ

বিশেষ প্রতিবেদন ১০ ই নভেম্বর শিলচর —- আসাম সরকার যেন ঝিকে মেরে বৌ কে শেখানোর মতো আচরণ করছে, এমনটাই জানিয়েছেন স্থানীয় বাসিন্দারা, তাদের অভিমত বার্মিজ সুপারীর উপর সরকারের বিধি নিষেধ অব্যাহত থাকুক তাতে তাদের কিছু যায় আসেনা কিন্তু বরাক উপত্যকার মানুষ যারা আদিকাল থেকেই তাদের নিজেদের বাড়িতে উৎপাদিত সুপারী বাজারে বিক্রি করে জীবিকা নির্বাহ করে আসছেন, সেখানে  স্থানীয় ব্যবসায়ীরা এইসব সুপারী বর্তমানে কিনতেই চাইছেন না । ফলে ব্যক্তিগত জমিতে উৎপাদিত সুপারী বাজারে বিক্রি করতে পারছেন না স্থানীয় বাসিন্দারা।

সুত্রে জানা গেছে ২০২১ ইংরেজীর ডিসেম্বর মাসে বার্মিজ সুপারী ও স্থানীয় সুপারীর মধ্যে তফাৎ ধরতে না পারার কারণে সরকার সব ধরনের সুপারী পরিবহনের ক্ষেত্রে বাধা নিষেধ আরোপ করেন ,ফলে স্থানীয় সুপারী ব্যবসায়ী গন স্থানীয় ভাবে উৎপাদিত সুপারী কিনতে চাইছেন না, সম্প্রতি কাছাড় পুলিশ প্রশাসনের তরফে স্থানীয় সুপারী পরিবহনের ক্ষেত্রে কঠোর মনোভাব পোষণ করা হচ্ছে,ফলে স্থানীয় সুপারী ব্যবসায়ী গন কাছাড় জেলার বাইরে সুপারী পাঠাতে পারছেন না। যার ফলে গ্রাম কাছাড়ের গরীব মেহনতি মানুষ তাদের বাড়ীর সুপারী বিক্রি করতে পারছেন না।

সুত্রে জানা কাছাড়ের ভিতরে সুপারী পরিবহন করতে কোনো ধরনের বাধা নিষেধ নেই বলে জানিয়েছেন একাংশ ব্যবসায়ী। এই ধরনের কথা কাছাড় জেলার পুলিশ সুপার বলেছেন বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

এদিকে পার্শ্ববর্তী ত্রিপুরা রাজ্যের  উত্তর ত্রিপুরার পানি সাগর, ধর্মনগর, কাঞ্চন পুর মহকুমায় প্রচুর পরিমাণে সুপারী ফলন হয়,আর এই সুপারী বিক্রি করে জীবিকা নির্বাহ করেন এই এলাকার সাধারণ মানুষ। প্রতি বছর এই সময়ে প্রচুর পরিমাণে সুপারী আসাম তথা অন্যান্য রাজ্যে সরবরাহ করে থাকেন ঐ এলাকার সুপারী ব্যবসায়ী গন। কিন্তু এবার উদোর পিণ্ডি বুধোর ঘাড়ে চুমু খেয়েছে, অর্থাৎ আসামে সব ধরনের সুপারী পরিবহনের উপর কঠোরতা অবলম্বন করছে আসাম সরকার, তাই ত্রিপুরার ব্যবসায়ী গন আসামের সীমান্ত দিয়ে সুপারী পরিবহন করতে চাইলে আসাম পুলিশ বাধা প্রদান করে।এই  খবর পেয়ে ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী ড,মানিক সাহা আসামের মুখ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্ব শর্মার কাছে তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করে চিঠি পাঠিয়ে তাঁর রাজ্যের মানুষের দূর্দশার কথা তুলে ধরে বিহিত ব্যবস্থা নিতে অনুরোধ জানান। তিনি বলেন বার্মিজ সুপারীর উপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে তাতে তাঁর সরকারের কোনো ধরনের অভিযোগ নেই,তাই বলে স্থানীয় সুপারী বেচা কেনা বা পরিবহনের ক্ষেত্রে বাধা নিষেধ আরোপ করা এক ধরনের বৈষম্যের নামান্তর বলে অভিমত ব্যক্ত করেছেন তাঁর রাজ্যের ব্যবসায়ী গন।

এক বিশেষ সুত্রে জানা গেছে ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রীর চিঠির গুরুত্ব উপলব্ধি করে আসামের মুখ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্ব শর্মা শীঘ্রই একটি ব্যবস্থা নিবেন বলে জানা গেছে।