DIGITAL

December 3, 2023

APTCE 18538973148

বরাক উপত্যকার চিকিৎসা পরিষেবা সম্পূর্ণ বাণিজ্যিক হিসেবে চিহ্নিত হয়ে গেছে, সরকার নীরব

বিশেষ প্রতিবেদন ১১ ই এপ্রিল শিলচর —– বরাক উপত্যকার শিলচর শহরের চিকিৎসা ব্যবস্থা সম্পূর্ণ বাণিজ্যিক ভিত্তিতে শুরু হয়েছে এমনটাই সাধারণ মানুষের মুখে মুখে ফেরছে। সাধারণ মানুষ তো উন্নত চিকিৎসার জন্য ভিন রাজ্যে যেতে পারে না তাই তারা বাধ্য হয়ে শিলচর শহরের তথাকথিত নামী চিকিৎসক দের শরণাপন্ন হন। এখানে উল্লেখ্য যে আজ থেকে বছর বিশেক আগের চিকিৎসক ও নেই আর চিকিৎসা ব্যবস্থা ও নেই।এখন অধিকাংশ চিকিৎসকের নামের পর বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের উপাধি লেগে গেছে তাই সাধারণ মানুষ তাদের কাছে ছুটে যান। দীর্ঘ সারি পরিলক্ষিত ও হয়।

এখানে উল্লেখ্য যে শিলচর মেডিকেল কলেজের চিকিৎসক গণ একাধারে সরকারি বেতন গুনছেন অন্যদিকে প্রতিটি নার্সিং হোম গুলিতে তাদের নামের সাইনবোর্ড লাগিয়ে চলছে নার্সিং হোম কর্তৃপক্ষের রমরমা ব্যবসা।‌‌‌ এদিকে ফার্মেসি মালিক গণ ও বসে নেই ঠিক তার সমানতালে রমরমা ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে ল্যাব গুলো ও।এই প্রতিবেদকের কাছে এমন একটি মিল ধরা পড়েছে যে চিকিৎসক নার্সিং হোম, ফার্মেসি ও ল্যাব গুলো চেইন সিষ্টেমের মধ্যে চলছে।  চিকিৎসক দের যেখানে বোঝাপড়া আছে সেখানে যেতে পরামর্শ দিচ্ছেন বিশেষ করে পরীক্ষা নিরীক্ষা নির্দিষ্ট ল্যাবে না করলে নেই। সেদিন শিলচরের এক নামি নার্সিং হোমের জনৈক চিকিৎসক পরীক্ষা করার জন্য তার পছন্দের ল্যাবের কার্ড রোগীর হাতে তুলে বললেন ঐখান থেকে পরীক্ষা নিরীক্ষা করে আসুন । এখন প্রশ্ন উত্থাপন স্বভাবতই উঠবে তাহলে আমি কেনো ৫০০ টাকা ফিস দিলাম? এই কার্ড নেওয়ার জন্য কি?

নিরুপায় হয়ে বাঁচার তাগিদে পরীক্ষার রিপোর্ট দেখার পর চিকিৎসকরা তাদের পছন্দের কোম্পানির ওষুধ লিখে দেন তা ও আবার ৭/৮ টি। এদিকে চিকিৎসক গণ যেসব ফার্মেসি তে বসে রোগী দেখেন তাদের লেখা ওষুধ ঐ ফার্মেসি ছাড়া অন্যত্র মিলেনা।এমন ও দেখা গেছে গোটা শিলচর ঘুরে ও ঔষধ মিলছে না।বাধ্য হয়ে সেই ফার্মেসি বা নার্সিং হোমের ফার্মেসিতে যেতে হয়। এভাবে চলছে বরাক উপত্যকার চিকিৎসা সেবা। লাগাম টানবে কে? বড় বড় রাজনৈতিক নেতার এক একটি নার্সিং হোম। এব্যপারে সাধারণ মানুষ হেনস্তার সম্মূখীন হচ্ছেন বলে জানিয়েছেন একাংশ সচেতন নাগরিক গন। কাছাড়ের জেলা শাসক রোহন কুমার ঝা মহাশয়ের দৃষ্টি আকর্ষণ করছেন ভূক্ত ভোগীরা।